পিপড়া কাঁচের তৈরী



অর্থ : অবশেষে যখন তারা পিপড়া অধ্যুয়িসত উপত্যকায় পৌঁছল তখন এক পিপড়া বলল, হে পিপড়া বাহিনী ! তোমরা তোমাদের ঘরে প্রবেশ কর, যেন সোলাইমান ও তার বাহিনী অজ্ঞাতসারে তোমাদেরকে পায়ের নিচে পিষে না ফেলে (সুরা আন-নামল: ১৮) 

আরো বিস্তারিত পড়ুন : ক্লিক করুন 

ইসলামের ঘোর বিরোধী  কিছু ইউরোপীয় ধর্মনিরপেক্ষ পন্ডিত একবার কয়েক সদস্য বিশিষ্ট একটি গবেষক টিম বানিয়েছিল। তাদের উদ্দেশ্য ছিল অন্তত একটি ভুল হলেও কোরআন থেকে বের করে একথা প্রমান করা যে, কোন কিতাবই নিখঁত ও নির্ভুল নয়। 

কোরআনে যেহেতু অধিকাংশ বিষয়েই আধ্যত্মিক ও পারলৌকিক অর্থ বহন করে সেহেতু তাদের মানে অনেকটাই কনফিডেন্স ছিল যে দর্শনগত কিছু ভুল হয়তো তারা খুঁজে পেয়ে মুসলমানদের লা জবাব করবে।   

কাচ বা কাচ জাতীয় পদার্থ ছাড়া অন্য কিছুতে সম্ভব নয়। যেহেতু পিপড়া পায়ের নিচে ফেলে টুকরো গুলো করা বা গুড়া করা যায় না ।

এর বহুদিন পর অষ্ট্রেলিয়ার প্রাণিবিদ্যা বিভাগের একজন অধ্যাপকের পিপড়ার জীবন রহস্য গবেষনার দেখা গেছে পিপড়ার শরীরের বাহিরের অংশে প্রায় ৭৫ শতাংশ কাচের উপদান বিদ্যামন । এবং এর বড়ি উন্নত মানের গ্লাস ফাইবার দ্বারা তৈরী। যার কারণে একটি মৃত পিপড়ার খোলস সামান্য আঘাতে ভেঙে অনেক গুলো খন্ডে হতে দেখা যায়। অত:পর সেই অধ্যাপক ইসলাম গ্রহন করতে বিলম্ব করেননি। সুবহানাআল্লাহ 





Post a Comment

0 Comments